ফ্রিল্যান্সারদের ট্যাক্স রিটার্ন সাবমিশন গাইডলাইন সংক্রান্ত সেমিনার

ট্যাক্সের আওতায় থাকা যেকোন দেশের প্রতিটি নাগরিকের কর্তব্য। তবে দুঃখের বিষয় আমাদের দেশে ট্যাক্স সম্পর্কিত রিসোর্সের বড্ড অভাব। এবং এ সম্পর্কিত খুব ভালো গাইডলাইন পাওয়ার ও ভালো সোর্স ও খুজে পাওয়া দুষ্কর। তার উপর ২০২৪ সাল পর্যন্ত আইটি এবং আইটি এনাবল্ড সার্ভিসেস এর জন্য ট্যাক্স মওকুফ করা আছে। অনেকেই যারা রিটার্ন ফর্ম প্রসেস করে দেন, তারা এ সম্পর্কে তেমন আইডিয়া রাখেন না। এটা হলো আরেকটা বিপদ।

আয়োজনঃ 

ট্যাক্স এবং ট্যাক্স রিটার্ন সম্পর্কিত বিষয়ে আমরা অধিকাংশই ক্লিয়ার ইনফরমেশন জানিনা। যার কারনে আমরা আপওয়ার্ক প্রিমিয়ার ক্লাবের পক্ষ থেকে এ সম্পর্কিত একটি সেমিনার আয়োজন করি ১০ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের চলচ্চিত্র মিলনায়তনে, যাতে আমরা নিজেরা সহ গ্রুপের অন্য সবাই এ সম্পর্কিত যথাযথ গাইডলাইন পেতে পারে। বলে রাখি, Upwork Premier Club বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে যারা আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেসে কাজ করে এবং সেখানে টপ রেটেড, তাদের জন্য স্পেশাল একটা কমিউনিটি।

আয়োজক কমিটিতে ছিলেন তারেক মাহমুদ, শেখ জুয়েল রানা, সোলায়মান হায়দার, হামিম হাসান, জাহিদুল ইসলাম নীল, মাহফুজ আলম, নাজমুল আলম, নাজিউর রহমান পায়েল এবং আমি। আয়োজক কমিটি, অতিথিবৃন্দ এবং গ্রুপের মেম্বার, সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় অনেক ভালো এবং উপকারি ইভেন্ট করা সম্ভব হয়েছে। এজন্য সবাইকে আমার পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

অতিথিবৃন্দঃ

সেমিনারে আমরা ট্যাক্স কন্সালটেন্ট এডভোকেট মুজাম্মেল হোসেন রিয়াজ ভাইকে ইনভাইট করি। এছাড়াও আমাদের সাথে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট সানাউল্লাহ।

এক্সপেরিয়েন্স শেয়ারিংঃ

সেমিনারের শুরুতেই এক্সপেরিয়েন্স শেয়ারিং এর একটা পার্ট রাখা হয় যেখানে গ্রুপের যেসব মেম্বার ইতোমধ্যে ট্যাক্স রিটার্ন দিয়ে আসছেন তাদের মধ্য থেকে শরীফ মুহাম্মদ শাহজাহান ভাই এবং সুমন সাহা ভাই এক্সপেরিয়েন্স শেয়ার করেন। তারা কেন ট্যাক্স রিটার্ন দিয়ে আসছেন, অন্যদের কেন দেয়া উচিত এ সম্পর্কিত মতামত শেয়ার করার পাশাপাশি শরীফ ভাই ট্যাক্স রিটার্ন জমা দেয়ার জন্য পেয়নিয়র ট্রাঞ্জেকশনের ক্ষেত্রে ব্যাংক এশিয়া থেকে রেমিট্যান্স সার্টিফিকেট নেয়ার উপায় সম্পর্কেও বলেন। এছাড়াও জুম এর মাধ্যমে রিসিভ করা পেমেন্টের জন্য SIBL থেকে রেমিট্যান্স সার্টিফিকেট নেয়ার উপায় সম্পর্কে বলি আমি।

মূল পর্বঃ

আমাদের এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য ই যেহেতু ট্যাক্স রিটার্ন সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করা, অতএব এটাই আমাদের মূল পর্ব। এক্সপেরিএন্স শেয়ারিং এর পর প্রায় ৩০ মিনিটের কফি ব্রেক থাকে, কফি ব্রেকের পরই সেশন শুরু করেন রিয়াজ ভাই। প্রায় ২ ঘন্টা তিনি ট্যাক্স রিটার্ন সম্পর্কে জানানোর পাশাপাশি উপস্থিত সকলের অনেক প্রশ্নের উত্তর দেন। উনার প্রেজেন্টেশনে উঠে আসে, কেন আমাদের ট্যাক্স রিটার্ন দেয়া প্রয়োজন, কারা ট্যাক্স রিটার্ন দিতে হবে, কখন এবং কিভাবে ট্যাক্স রিটার্ন জমা দিতে হয়, কিভাবে ট্যাক্স রিটার্ন ফর্ম রেডি করতে হয় সহ আরো অনেক খুটিনাটি বিষয়।

সেই সেশন থেকে অল্প কিছু ইনফরমেশন আমি শেয়ার করছি এখানে, এর বাইরেও কারো যেকোন ধরনের প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট সেকশনে কররে ফেলতে পারেন, আমি নিজে উত্তর দিতে না পারলেও রিয়াজ ভাইয়ের হেল্প নিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবো।

১। যেকোন ব্যক্তি যদি বাৎসরিক ২৫০০০০ টাকার উপরে ইনকাম করেন, সেক্ষেত্রে তিনি ট্যাক্সের আওতায় আসবেন। তাকে টিন সার্টিফিকেট করতে হবে এবং প্রতি বছর ট্যাক্স রিটার্ন সাবমিট করতে হবে।

২। আইটি সেক্টরের জন্য ২০২৪ সাল পর্যন্ত ট্যাক্স মওকুফ আছে, অর্থাৎ এই সেক্টরের আয়ের জন্য বর্তমানে কোন ট্যাক্স দিতে হবে না। তবে অবশ্যই সময়মত অর্থাৎ প্রতি বছর ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ট্যাক্স রিটার্ন সাবমিট করতে হবে।

৩। টিন সার্টিফিকেট করার পর আপনাকে অবশ্যই প্রতি বছর রিটার্ন সাবমিট করতে হবে। অন্যথায় জরিমানার বিধান আছে। আপনার যদি পর্যাপ্ত আয় না হয়, তাহলে জিরো ট্যাক্স দেখাবেন, কিন্তু রিটার্ন অবশ্যই সময়মত সাবমিট করতে হবে।

এর বেশি কিছু লিখছি না, নিচে থাকছে সম্পূর্ন ইভেন্টের ভিডিও। ভিডিও দেখলে আশা করি আপনারা অনেক বিষয় খুব সহজে বুঝে নিতে পারবেন।

ভিডিও:

প্রচুর পরিশ্রম করে সম্পূর্ন প্রোগ্রামের ভিডিও ধারন করেছেন সোলায়মান ভাই। তাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি আর সেই সঙ্গে তার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইব বাটনে একটি টোকা দিয়ে এপ্রেশিয়েট করার জন্য আহবান জানাচ্ছি আপনাদের সবাইকে 😛

পরিশেষে এটা বলতে চাই, আপনারা যারা পর্যাপ্ত আয় করছেন তারা অবশ্যই ই-টিন করে  ট্যাক্স এর আওতায় চলে আসুন। এতে করে দেশের প্রতি আমাদের কন্ট্রিবিউশন একটু হলেও হতে থাকবে।

শেয়ার করুন
error

You Might Also Like

4 Replies to “ফ্রিল্যান্সারদের ট্যাক্স রিটার্ন সাবমিশন গাইডলাইন সংক্রান্ত সেমিনার”

  1. সুন্দর লেখা লিখেন তো ভাই আপনি। জুম এর রেমিটেন্স সার্টিফুইকেট কিভাবে একটু সংক্ষিপ্ত করে যদি লিখে দেন তাহলে আমার নিচের পোস্ট “Quote” করে দিতাম 🙂 https://nirbodh.com/get-remittance-certificate/

    1. প্রসেসটা মোটামুটি সিম্পল। বছরের সব ট্রাঞ্জেকশন আইডি সহ লিস্ট করে একটা এপ্লিকেশন সহ SIBL এর ফরেন এক্সচেঞ্জ ব্রাঞ্চে গিয়ে জমা দিলে তারা ২-৩ টাইম নিবে, এবং রেডি করে দিয়ে দিবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।